অনিকেত প্রান্তর লিরিক্স [ Oniket prantor lyrics, 2006 ] আর্টসেল ব্যান্ড [ Artcell Band]

অনিকেত প্রান্তর | Oniket Prantor (2006)

অনিকেত প্রান্তর লিরিক্স [ Oniket prantor lyrics ,2006 ] আর্টসেল ব্যান্ড [ Artcell Band] – “অনিকেত প্রান্তর” বাংলাদেশ ব্যান্ড আর্টিসেলের একটি জনপ্রিয় গান।

অনিকেত প্রান্তর লিরিক্স [ Oniket Prantor (2006) ] আর্টসেল ব্যান্ড
আর্টসেল [ ArtCell বা Artcell ] প্রগ্রেসিভ মেটাল ব্যান্ড

অনিকেত প্রান্তর লিরিক্স

তবু এই দেয়ালের শরীরে
যত ছেঁড়া রঙ ধুয়ে যাওয়া মানুষ
পেশাদার প্রতিহিংসা তোমার চেতনার
যত উদ্ভাসিত আলো রঙ
আকাশের মতন অকস্মাৎ
নীল নীলে ডুবে থাকা তোমার প্রিয় কোনো মুখ
তার চোখের কাছাকাছি এসে
কেন পথ ভেঙে
দুটো মানচিত্র এঁকে, দুটো দেশের মাঝে
বিঁধে আছে অনুভূতিগুলোর ব্যবচ্ছেদ …

 

অনিকেত প্রান্তর | Oniket Prantor (2006)

তবু এইখানে আছে অবলীল হাওয়া
জানালা বদ্ধ ঘরে আসে যায়,
দেয়াল ধরে বেড়ে ওঠে মধ্যরাত
তোমার ছায়ায় জমে এসে ভয়,
আলোকে চিনে নেয় আমার অবাধ্য সাহস
ভেতরে এখন কি নেই কাপুরুষ অন্ধকার একা?

তোমাকে ঘিরে পথগুলো সব সরে যায়
রাত্রির এই একা ঘর ঝুলে আছে
শূন্যের কাঁটাতারে,
দুটো মানচিত্র এঁকে, দুটো দেশের মাঝে
মিশে আছে অনুভূতিগুলোর ব্যবচ্ছেদ …

 

অনিকেত প্রান্তর | Oniket Prantor (2006)

তবু এই দুটি কাঁটাতারে, শহরের মতো করে
ভিড়ে ভরে গেছে ঘুম আমার,
অচেতন কখন বেওয়ারিশ মাটির কাছে এসে
সময় কে এপিটাফ ভেবে হাঁটু গেড়ে বসে..

তবু এখানে বাতাস আসে দুরত্বের উৎসাহে
শরৎ জমে আছে ঠাণ্ডা ঘাসে,
তোমার চোখের মাঝে দূরের একা পথ
এখানে ভাঙ্গে না দুটো দেশে।

মেঘের দূরপথ ভেঙ্গে বুকের গভীর অন্ধকারে
আলোর নির্বাসন স্মৃতির মতন,
অবিকল স্বপ্ন ঘর বাঁধা স্মৃতির অন্ধ নির্জনে
সময় থেমে থাকে অনাগত,
যুদ্ধের বিপরীতে …

 

অনিকেত প্রান্তর | Oniket Prantor (2006)

এখানে সরণির লেখা নেই নাম,
কোনো শহীদ স্মারকে
তোমার জন্য জমা থাকে শুধু স্বপ্নঘর,
জানালায় ঝুলে থাকে না শূন্যতার অবচেতন
তোমার ঘরের অন্ধ আলোয় অদেখা
এখানেই নির্জন অনিকেত প্রান্তর …

তবু তোমার ভাঙা স্মৃতি,
ছেঁড়া স্বপ্ন, দোমড়ানো খেলাঘর
ছেঁড়া আকাশ, ভাঙা কাঁচে
আলো আর অন্ধকার তোমার।

তোমার দেয়ালে কত লেখা
মানুষের দেয়ালে দেয়াল
বেড়ে ওঠে কাঁটাতার,
এখানে এ মহান
মানচিত্রের ভাগাড় ..

অনিকেত প্রান্তর | Oniket Prantor (2006)

তোমার শূন্য ঘরে ভরা স্মৃতি
জড় পাথরে লেখা নাম, শহীদ স্মরণী
জানালার বাইরে ভেসে গেছে দূরের আকাশ
বিঁধে আছি সময়ের কাঁটাতারে..
বিঁধে আছো ছেঁড়া আকাশের মত তুমি।

তোমার স্বপ্নের দলা পাকানো
বাসি কবিতা, নষ্ট গানে
তোমার জানালার বাইরে শূন্য আকাশ
তবু অনিকেত এই প্রান্তরে..
এখানে এখনও শরতের প্রচুর বাতাসে
সবুজের ঘ্রাণে ভরে আছে অন্ধকার এ ঘর তোমার
দেয়ালে এখন শুধু মৃত্যুর মৃত রেখাপাত …

তোমাকে কড়া নাড়ে স্মৃতিরা, ভাঙা স্বপ্ন
ঘুমের মত নেশাময় কত,
কত শিশু, কত আলোর মশাল নিভে গেছে
নিভে গেছে কত অচেনা ভয়
তোমাকে এখন অপরিণত এক অচেনা
স্মৃতি মনে হয়
তোমার জানালার বাইরে শূন্যে
দূরের স্বপ্ন ঘর ঝুলে আছি
নির্জনতায় মৃত্যু কি অনিকেত প্রান্তর ?

 

অনিকেত প্রান্তর | Oniket Prantor (2006)

 

অনিকেত প্রান্তর গানটির অর্থ:

প্রায় সব শ্রোতার মনেই আর্টসেলের “অনিকেত প্রান্তর” গানটির দৈর্ঘ্য ও এর প্রকৃত অর্থ নিয়ে একটি প্রশ্ন আছে, সেই প্রশ্নের জট খুলতে আর্টসেলের ভোকালিস্ট লিংকন এর ইন্টারভিউ হুবুহ তুলে দিলামঃ

আমাদের এক বন্ধু রুম্মান আহমেদ। ওর চমৎকার লেখার ক্ষমতা আছে, কিন্তু ওর চিন্তা ধারা এবং গানে শব্দচয়ন একটু ভিন্ন ধাঁচের, যাকে কঠিন বলা যেতে পারে। সে একদিন প্রায় ৪ পাতার এক লিরিক নিয়ে আমাদের চারজন-আমি,এরশাদ,সাজু আর সিজানের কাছে নিয়ে আসে। লিরিকের ল্যান্থ দেখে তো আমাদের চোখ কপালে ।এত্ত বড় লিরিকে সুরই বা কীভাবে বসাবো আর গাইবোই বা কীভাবে।

কিন্তু রুম্মান আমদের গানটির ভেতরের কথাগুলো স্পষ্ট করে বোঝালো। গানটির ভেতরকার কথাগুলো প্রত্যেক মানুষেরই মনের কথা হতে পারে। গানটির থিম আমাদের খুব ভাল লাগল। লিরিকটাতে প্রাণ দিয়ে গানে পরিণত করার এক ইচ্ছা আমাদের চারজনের মনে গেঁথে বসলো।

ইচ্ছে থাকলেই তো হবে না; ৪পাতার বিশাল লিরিকটাকে গান বানানো তো আর যা-তা কথা নয়। তখন আশার বাণী হিসেবে সিজান ভুবনবিখ্যাত ব্যান্ড ‘ড্রীম থিয়েটার’র ‘চেঞ্জ অব সিজনস’ গানটির উদারণ টানলো,ঘড়ির কাটাতে যার সময় ছিল ২৩ মিনিট। গানটা শুনে বিরক্তি তো আসেই না, বরং একটি লাইনের পর অথবা একটি কম্পোজিশনের পর আরেকটি শুনলে মনে হয় যে, ঠিকই তো, এরপর তো এইটাই হওয়ার কথা ছিল অথবা এই তালটার পর ওই তালেরই আসার কথা ছিল। মনে হলো, ২৩ মিনিটের সেই গানটি এমন বিখ্যাত হতে পারলে, রুম্মানের এই লিরিকেও গান বানানো অসম্ভভ নয়।

তো এই গানটা আমাদের অনুপ্রেরণা হিসেবে কাজ করলো। আমরা দিন-রাত এই ‘চেঞ্জ অব সিজনস’ গানটা বাজানোর চেষ্টা করতাম-বাজাতাম। এরপর প্রায় এক বছর আমরা এই গানটা নিয়ে কাজ করি। একটা সময় মোটামুটি গানটা হাতে এসে পড়লো। তখন আমরা রুম্মানের সেই ‘৪ পাতার লিরিককে’ গানে পরিণত করার উদ্যোগ নিলাম।

মূলত এরশাদ ও সেজান মিলে লিরিকটিতে একটা সুর বসালো। আমি আর সাজুও বিভিন্ন পরামর্শ দিয়ে সাহায্য করেছিলাম। এবার বিরাট এ গানটা গাইবার পালা। গানটা গাইলাম; আর্টসেলের দ্বিতীয় অ্যালবামের টাইটেল ট্র্যাক হিসেবেই গানটা রিলিজ পেলো – ‘অনিকেত প্রান্তর’।

‘অনিকেত প্রান্তর’ শব্দটির অর্থ ‘No mans’ land’। রুম্মানের লেখা ‘অনিকেত প্রান্তর’ লিরিকটি মানুষের ‘অনিকেত প্রান্তর’ বা ‘No mans’ land’র চিন্তা-ভাবনা নিয়ে লেখা। দু’দেশের মাঝখানে এমন একটি মালিকানাবিহীন জায়গা- ‘No mans’ land’ থাকে, যেখানে চলে না কারও নিয়ম-শৃংখলা, রীতি-নীতি, বিধি-নিষেধ, তেমনি প্রত্যেক মানুষের মাঝেও একটি করে ‘No mans’ land’ থাকে। সেই ‘No mans’ land’ দাঁড়িয়ে, সেই স্বাধীনতার তাড়না থেকে এই গানটি লেখা। মানুষ স্বাধীন হলেও স্বাধীনভাবে তার সব স্বপ্নকেই জীবন দিতে পারে না। কিন্তু কেবল অনিকেত প্রান্তরে দাঁড়িয়েই সে তার স্বপ্নগুলোকেই স্বপ্নে হলেও জীবন দিতে পারে। বাস্তবে হয়তো সেগুলো ‘স্বপ্নের দলা পাকানো বাসি কবিতা, নষ্ট গান’ হয়েই ঝড়ে যায়।

 

 

আরও দেখুনঃ 

You May Also Like

About the Author: Aurnab

2 Comments to “অনিকেত প্রান্তর লিরিক্স [ Oniket prantor lyrics, 2006 ] আর্টসেল ব্যান্ড [ Artcell Band]”

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।